ডঃ ভীমরাও রামজি আম্বেদকর, যাঁর গোটা জীবনই যেন এক প্রেরণার বাতিঘর

এভেন তারাসঃ ডঃ ভীমরাও রামজি আম্বেদকর, পিছিয়ে পড়া দলিতরা যাকে ভালোবেসে ‘বাবা সাহেব’ বলে ডাকেন। তিনি ছিলেন তুখোড় অর্থনীতিবিদ ও দার্শনিক।

তিনি ভারতের প্রথম আইনমন্ত্রী, ভারতীয় সংবিধানের মুখ্য স্থাপক। বর্ণবৈষম্য বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম পুরোধা ব্যক্তিত্ব। তাঁকে মরণোত্তর ১৯৯০ সালে ভারতের সর্বোচ্চ উপাধি ‘ভারত রত্ন’ দেওয়া হয়েছিল।

কী প্রচণ্ড ঘৃণা! কেন? কারণ ভীমরাও যে জন্মেছেন নিন্মবর্ণের পরিবারে। মহর পরিবারে জন্ম নেয়া একজন দলিত। তার কাছাকাছি আসলে কি খাবারের পবিত্রতা থাকবে? উচ্চবর্ণের মানুষদের তার সাথে মেশা শোভা পায়?

তবুও, ভীমরাও এর কাছে অবশ্য এসব নতুন কিছু না। সেই ছোটবেলা থেকে সয়ে আসছেন। স্কুলে ক্লাসের বসার জায়গা মিলেও তা এককোণে, একদম শেষের সারিতে। পানীয় জলের পাত্র পর্যন্ত তাঁকে স্পর্শ্য করতে দেওয়া হতো না।

আম্বেদকরের অনুপ্রেরণায় এখনও দলিতরা তাদের অধিকার আদায়ে সোচ্চার। তাঁর গোটা জীবনই যেন এক প্রেরণার বাতিঘর।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  

Leave a Comment